যেকোনো দলের জন্য ব্রাজিল কঠিন প্রতিপক্ষ

0
278

জার্মানি, আর্জেন্টিনা, পর্তুগাল ও স্পেনের বিদায়ে অনেকটাই বিবর্ণ রাশিয়া বিশ্বকাপ। ধীরে ধীরে ফুটবল ভক্তদের উন্মাদনাও অনেকটা ঝিমিয়ে এসেছে। তবে ব্রাজিল এখনো এ বিশ্বকাপের প্রাণ হয়ে রয়েছে। মেক্সিকোর বিপক্ষে শেষ ষোলতে ২-০ গোলে জয় নিয়ে শিরোপার পথে আরো একধাপ এগিয়ে গেল ব্রাজিল। বাংলাদেশের ফুটবল সমর্থকদের ফুটবল উচ্ছ্বাসও বেঁচে রয়েছে ব্রাজিলকে ঘিরেই। বাংলাদেশ ফুটবল দলের অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া মনে করেন সব দিক থেকে এগিয়ে থাকা ব্রাজিল খেলতে পারে ফাইনাল।

তিনি বলেন, দেখেন প্রায় সব বড় দলই বিদায় নিয়েছে। তবে এখনো ব্রাজিল টিকে রয়েছে। তারা সব দিক থেকে দারুণ ফুটবল খেলছে। যদিও এখন পর্যন্ত তাদের চারটি ম্যাচ দেখেন ব্রাজিল কিন্তু গোল খেয়েছে মাত্র একটা। তার মানে ওদের ডিফেন্স অসাধারণ। বেলজিয়াম যে খুব সহজ প্রতিপক্ষ হবে তা নয়। ওরাও দারুণ খেলছে। তবে এখন ব্রাজিলের এই ডিফেন্স ভেঙে কতোটা সফল হবে- সেটি দেখার বিষয়। আমি মনে করি এ আসরে ব্রাজিলের সম্ভাবনা অনেক বেশি। সবচেয়ে বড় কথা হলো, যে কোনো দলের জন্য ব্রাজিল কঠিন প্রতিপক্ষ।
ক্লাব ফুটবলের বড় প্রভাব
রাশিয়া বিশ্বকাপকে জামাল ভূঁইয়া দেখছেন অঘটনের আসর হিসেবে। কারণ বড় দলগুলোর বিদায় ছিল করুণ। এর কারণ হিসেবে বাংলাদেশ অধিনায়ক বলেন, বিশ্বের যতগুলো বড় দল রয়েছে তাদের তারকা ফুটবলারা পৃথিবীর বিভিন্ন ক্লাবে খেলে। এটাতে কি হয়েছে ওদের শক্তি সামর্থ্যগুলো এখন সবার জানা। বিশেষ করে এবার ছোট দলগুলো কিন্তু সেভাবেই নিজেদের প্রস্তুত করে এসেছে। যে কারণে দেখেন ওরা রক্ষণ ভাগ শক্তিশালী রেখেছে। আর বড় দলের তারকাদের মার্ক করে রেখেছে যেন সুযোগ বেশি না পায়। আবার দেখেন আর্জেন্টিনা মেসি, মাসচেরানো, ডি. মারিয়া ও আর কয়েক জন ছাড়া বেশির ভাগই খেলোয়াড়ই বিশ্বের কোন ক্লাবে খেলে না। পর্তুগালেরও একই অবস্থা।
জার্মানি-স্পেনের করুণ বিদায়
এ বিশ্বকাপে জার্মান ও স্পেনের বিদায় ছিল সবচেয়ে করুণ। তাদের এমন ধসের কারণ হিসেবে জামাল ভূঁইয়া বলেন, জার্মানির ফর্ম এবার তেমন ভালো ছিলো না। তারা যে দল হিসেবে খেলে সেটিই এবার ছিল অদৃশ্য। বড় বড় তারকাদের মধ্যে সমন্বয়টা ছিল একেবারেই কম। যে কারেণ প্রথম রাউন্ডেই তাদের ফিরতে হয়েছে বাজে ভাবে। এছাড়া স্পেনের কথা বলেন! লাতিন ফুটবলের সৌন্দর্যই ওরা। ওদের ফুটবল খেলা দেখে মানুষ মুগ্ধ। কিন্তু ধিরে ধিরে ওদের কৌশলগুলো সবাই বুঝতে পেরেছে। স্পেন কিন্তু বেশি গোল করে খেলে না। ওদের এ কৌশলগুলো এতোটাই ওপেন সিক্রেট যে, সব দলই তাদের আটকানোর কৌশল বের করে নিয়েছে।
দলের কারণেই মেসি-রোনালদোর হতাশা
রাশিয়া বিশ্বকাপে একই রাতে বিদায় নিয়েছেন ফুটবল বিশ্বের দুই মহাতারকা। তাদের এ করুণ বিদায়ের জন্য বাংলাদেশের অধিনায়ক দায়ি করছেন দলকে। তিনি বলেন, সেমি ও রোনালদোর বিদায়ের একটাই কারণ তাদের ‘দল’। আর্জেন্টিনাতো মেসির সঙ্গে তাও ডি মারিয়া, আগুয়েরা, হিগুয়েনরা ছিল। কিন্তু রোনালদোকে কে সাপোর্ট করেছে বলেন? তবে রোনালদো বিশ্বকাপে মেসির চেয়ে এগিয়ে ছিল। ৪ গোল করেছে। একাই দলকে জিতিয়েছে।
নতুন কোনো দলের বিশ্বকাপ জেতার সুযোগ
এবার বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন হবে কোন দল! অনেকের ধারণা নতুন কোন দলের হাতেই উঠবে শিরোপা। কিন্তু জামাল ভূঁইয়া মনে করেন নতুন কোনো দল নয় বিশ্বকাপের ট্রফি উঠতে পারে পুরনোদের হাতেই। তিনি বলেন, আমার মনে হয়না নতুন কোন দল শিরোপা নিবে। আমি মনে করি ব্রাজিল, ফ্রান্স ও ইংল্যান্ডের দারুণ সম্ভাবনা আছে।
কুটিনহো-এমবাপ্পেতে মুগ্ধতা
মেসি, রোনালদো বিদায় নিয়েছেন। নেইমার এখনো নিজেকে প্রমাণ করতে পারেননি। যদিও তার দল কোয়ার্টার ফাইনাল খেলছে। তবে তাদেরকে ছাড়াও ফ্রান্সের কিলিয়ান এমবাপ্পে ও ব্রাজিলের কুটিনহোর উপরও এবারের স্পট লাইট রয়েছে বলেই জানালেন জামাল। তিনি বলেন, মেসি-রোনালদোর কথা বলে আর লাভ নেই। নেইমার যতোটা ভালো করার কথা ছিল এখনো ততোটা পারেননি। তবে এবারের স্পট লাইট যদি বলেন তাহলে আমি বলবো ব্রাজিলের কুটিনহো ও ফ্রান্সের এমবাপ্পের উপরই রয়েছে। সামনে আরো ম্যাচ আছে আশা করি দারুণ কিছুই উপহার দিবে তারা।
অনুলিখন: ইশতিয়াক পারভেজ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য প্রদান করুন
আপনার নাম প্রদান করুন